টানা বর্ষনে ময়মনসিংহের বিসিক শিল্প মালিকদের কোটি টাকার ক্ষতি

একদিনের বর্ষনে ময়মনসিংহে মাসাকান্দা বিসিক শিল্প এলাকার ৯৫ শিল্প মালিকের দেড়শত কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর

ময়মনসিংহে গত ৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে সারারাত মুষলধারে টানা প্রবল বৃষ্টির কারণে নগরীতে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে নগরীর অধিকাংশ এলাকা।

আর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মাসকান্দা বিসিক শিল্পনগরী, বিভিন্ন পেট্রোল পাম্প, বিপনি কেন্দ্র,বানিজ্যিক ও আবাসিক এলাকার বাসিন্দারা । ধারণা করা হচ্ছে একদিনের বৃষ্টিতে শুধু শহরেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদের ।

মাসকান্দা বিসিক শিল্প নগরী পানিতে তলিয়ে যাওয়ার কারনে ছোট বড় ৯৫ টি শিল্প মালিকগন মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে মাসকান্দা বিসিকে শিল্প মালিকদের দেড়শত কোটি টাকার সম্পদের ক্ষতি হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে ও সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে মহানগরীর বিভিন্ন এলাকার পাশাপাশি ময়মনসিংহ বিসিক শিল্প নগরীর রাস্তাঘাটসহ বিভিন্ন শিল্প কারখানায় পানিতে তলিয়ে গেছে। শিল্প কারখানায় পানি প্রবেশ করার কারনে উৎপাদন বন্ধ হয়ে ব্যাপক লোকসানের সম্মুখীন হচ্ছেন শিল্প কারখানার মালিকগন।

আরও পড়ুন >> ময়মনসিংহে “এডভান্সিং উইমেন্স লিডারশীপ ইন পলিটিক্স” শীর্ষক আঞ্চলিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

বিসিকের অন্যতম শিল্পী প্রতিষ্ঠান মেসার্স তাকওয়া মার্কেটিং নেটওয়ার্কের নাইটগার্ড মশার কয়েলের ফ্যাক্টরী ও অফিস পানিতে তলিয়ে গিয়ে কয়েলের যাবতীয় কাঁচামালের ম্যাটেরিয়েল,প্যাকিংসামগ্রী, অফিসের যাবতীয় খাতাপত্র, সরকারী বেসরকারী দপ্তরের গুরুত্বপূর্ন দলিলপত্রের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।
এছাড়াও শতশত কার্টন উৎপাদিত কয়েল পানির নীচে তলিয়ে গিয়ে অপূরনীয় ক্ষতি হয়েছে।

এব্যাপারে তাকওয়া মার্কেটিং নেটওয়ার্কের স্বত্বাধিকারী মোঃ ফেরদৌস মিয়া বলেন রাতের বেলায় হঠাৎ করে এমন জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ার কারনে কোন মালমাল সরানো সম্ভব হয়নি। আমার ফ্যাক্টরী এবং অফিসে প্রায় কোমর পরিমাণ পানি উঠে যায়। এতে আমি ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি।

অপর একজন শিল্প মালিক ও বিসিক শিল্প মালিক সমিতির সভাপতি রুহুল এন্টারপ্রাইজ এর স্বত্বাধিকারী আলহাজ্ব মোঃ রুহুল আমিন জানান আমার ফ্যাক্টরী ও অফিস তলিয়ে গিয়ে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি। আমার মতো বিসিকের ৯৫ জন শিল্প মালিকের মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে।

বিসিকের শিল্প নগরী কর্মকর্তা কায়ছার বাবু রাজু সাংবাদিকদেরকে বলেন হঠাৎ করে সৃষ্ট জলাবদ্ধতার কারনে বিসিকের সকল রাস্তায় কোমর পরিমাণ পানি জমে গিয়ে বিভিন্ন শিল্প কারখানায় পানি প্রবেশ করে এবং উৎপাদন বন্ধ হয়ে যায়।

তিনি আরও বলেন এতে প্রায় শত কোটি টাকার ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন শিল্প মালিকগন।এ ব্যাপারে তিনি বিভিন্ন সরকারি দপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহায়তাও কামনা করেছেন।

<<ময়মনসিংহ টিভির গুগল নিউজ ফলো করতে ক্লিক করুন>>

শেয়ার করুন :
জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *