শালীর আপত্তিকর ছবি দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করায় দুলাভাই গ্রেফতার

কলেজ ছাত্রী শালীর আপত্তিকর ছবি মোবাইলে ধারন এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে ব্ল্যাক মেইল করায় দুলাভাই গ্রেফতার।

জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর

মেয়েটি ময়মনসিংহ আনন্দমোহন কলেজের ১ম বর্ষের ছাত্রী।মেয়েটির বড় বোনের স্বামী হওয়ার সুবাদে দুলাভাইয়ের সাথে দীর্ঘদিন যাবৎ কথাবার্তা হয়।দুলাভাই মেয়েটির বাড়ীতে নিয়মিত আসা যাওয়া করতো।

আসা যাওয়ার এক পর্যায়ে দুলাভাই কৌশলে শালীর ব্যাক্তিগত মোবাইল থেকে জিমেইল আইডি ও ফেইসবুক আইডির পাসওয়ার্ড নিয়ে নেয় এবং মোবাইলে থাকা মেয়েটির ব্যাক্তিগত আপত্তিকর কিছু ছবি নিয়ে নেয়।

পরবর্তীতে দুলাভাই উক্ত ছবি শালীকে দেখিয়ে বিভিন্ন সময় ব্ল্যাক মেইল করতে থাকে এবং বিভিন্নভাবে তার সাথে শারিরীক সম্পর্ক করার জন্য ভয়ভীতি প্রদর্শন করতে থাকে।এছাড়াও বিভিন্ন ভাবে হুমকি দেয় যে তার সাথে শারিরীক সম্পর্ক না করলে সে তার আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করে দেবে।আর এই কথা যদি সে কাউকে বলে তাহলে তার বোনকে তালাক দেবে বলে হুমকি দেয়।

মেয়েটি তার বোনের সংসারের কথা চিন্তা করে উক্ত বিষয়ে কাউকে কিছু বলে নাই।

দুলাভাই তার সাথে শারিরিক সম্পর্ক করার জন্য ক্রমাগত চাপ দিতে থাকে এবং সেই কূ-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সে রাগে ক্ষোভে ভিকটিমের নামে একাধিক ফেইক ফেইসবুক আইডি খুলে মেয়েটির কাছে এবং তার পরিচিতজনদের কাছে আপত্তিকর ছবি দেয়।

এরপর মেয়েটি মুক্তাগাছা থানায় একটি জিডি করেন।দুলাভাইয়ের এরুপ হুমকিতে ভিকটিম দিশেহারা হয়ে যায়।

মেয়েটি তার পরিবারের সম্মান বাচাতে এবং তার ভবিষৎতের কথা চিন্তা করে উল্লেখিত বিষয়ে তার পরিবার এবং বড় বোনকে জানায়।

তার বড় বোন ও পরিবারের লোকজন দুলভাই (বড় বোনের জামাই) সাথে ভিকটিমের ছবি ভাইরাল না করার জন্য অনুরোধ করে।

কিন্তু দুলাভাই তা না শুনে পরিবারকে জানায় তার স্ত্রী (বড় বোন)কে সে তালাক দেবে এবং শালীকে বিয়ে করবে।

তার পরিবার যদি বিবাদীর সাথে তার বিয়ে না দেয় তাহলে সে তাকে কোথাও সংসার করতে দেবে না এবং তার আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল করবে এবং আরো বলে তার কাছে মেয়েটির এই রকম আরো অনেক ছবি আছে।

তার মা ও বড় বোন বিষয়টি অনুধাবন করে নিকট আত্মীয় স্বজনের সাথে পরামর্শ করে ভিকটিমকে জাতীয় জরুরী সেবা “৯৯৯” এ কল দিতে বলে।

পরবর্তীতে ভিকটিম “৯৯৯” এর মাধ্যমে ২ এপিবিএন, মুক্তাগাছা, ময়মনসিংহের সাইবার ইউনিটে হাজির হয়ে একটি অভিযোগ দায়ের করে।

উক্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ৫মে ২০২৪ তারিখে গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানাধীন সফিপুর তালতলি এলাকার সালেক টেক্সটাইল লিঃ হতে আসামীকে আটক করে।

আসামীর কাছে থাকা ০২ টি মোবাইল ফোন জব্দ করে পর্যালোচনা করে ভিকটিমসহ একাধিক নারীদের অশ্লীল, কুরুচিপূর্ন ছবি এবং ০২ (দুই) টি ফেইক ফেইসবুক আইডি পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন >> ময়মনসিংহ টু নেত্রকোনা মোহনগঞ্জ ট্রেনের সময়সূচি ও ভাড়ার তালিকা

পরবর্তীতে আসামীকে ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা থানায় পাঠানো করা হয়।

শেয়ার করুন :
জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *