আজ শহীদ ফিরোজ জাহাঙ্গীর দিবস

২৮ নভেম্বর ফিরোজ জাহাঙ্গীর দিবস ।১৯৯০ সালের এই দিনে ময়মনসিংহের রাজপথে পুলিশের গুলিতে নিহত হন মেধাবী এই দুই ছাত্রনেতা শেখ ফিরোজ আহম্মেদ ও জাহাঙ্গীর আলম।

জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর

নব্বইয়ের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে তখন সারা দেশ উত্তাল। ব্যতিক্রম ছিলনা ময়মনসিংহেও। স্বৈরাচারের পতনের জন্য ময়মনসিংহে গঠন হয়েছিল সর্বদলীয় ছাত্র ঐক্য পরিষদ। মিছিলে মিছিলে উত্তাল হয়ে উঠত ময়মনসিংহ শহর। সেদিন ছিল বুধ বার। ২৭নভেম্বর রাতে পুলিশ কর্তৃক গুলিবিদ্ধ হয়ে ডাক্তার মিলন শহীদ হবার খবর ছড়িয়ে পড়লে ২৮ নভেম্বর সকাল সকাল হতেই ময়মনসিংহে প্রতিবাদী মিছিল সহকারে বেরিয়ে পড়েছিল ছাত্র জনতা।

মিছিল যখন ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনারপার এলাকায় মহাকালী গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে তখনই মিছিলে পুলিশের গুলি। মাটিতে লুটিয়ে পড়েন শেখ মো. ফিরোজ ও জাহাঙ্গীর হোসেন। মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে শহীদ হন শেখ মো. ফিরোজ ও জাহাঙ্গীর হোসেন। তাৎক্ষণিক ক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে ময়মনসিংহের রাজপথগুলো। সেই আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় শেষ পর্যন্ত অবসান হয় স্বৈরতান্ত্রিক সরকারে, পতন ঘটে এরশাদ সরকারের।

ফিরোজ ও জাহাঙ্গীরের শহীদ হওয়ার খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে শুরু করে। মানুষে মানুষে ভরে যায় ময়মনসিংহের গাঙ্গিনারপার, সি.কে. ঘোষ রোড ও আর নতুন বাজার এলাকা। ওই অবস্থায় পুলিশ ফিরোজ এবং জাহাঙ্গীরের লাশ নিয়ে যেতে উদ্যাত হলে ক্ষোভে উত্তাল হয়ে পরে আন্দোলনকারীরা। শেষ পর্যন্ত তাদের প্রতিরোধের মুখে পুলিশ লাশ নিয়ে যেতে পারেনি। দুপুর নাগাদ প্রায় ২৫ হাজার থেকে ৩০ হাজার মানুষ জড়ো হয় ময়মনসিংহ শহরের প্রাণকেন্দ্র গাঙ্গিনারপাড়ে।

ফিরোজ জাহাঙ্গীর দিবস
ফিরোজ জাহাঙ্গীর চত্ত্বর ময়মনসিংহ

 

নব্বইয়ের গণআন্দোলনে অংশ নেওয়া তৎকালীন কয়েকজন ছাত্রনেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায় ফিরোজ ও জাহাঙ্গীরের মরদেহ নিয়ে দুপুরে মিছিল বের হয়। মিছিলটি শহরের মিন্টু কলেজ থেকে আনন্দ মোহন সরকারি কলেজের দিকে যায়। বিকালে তাঁদের দাফন হয়। শহীদ শেখ মো. ফিরোজ ও জাহাঙ্গীর হোসেনের বাড়ি ময়মনসিংহ শহরের আকুয়া এলাকায়। ফিরোজ তৎকালীন সময়ে নাসিরাবাদ কলেজের বিপ্লবী ছাত্র সংঘের নেতা ছিলেন। আর জাহাঙ্গীর ছিলেন জাসদ ছাত্রলীগের ময়মনসিংহ পলিটেকনিক শাখার নেতা।

আরও পড়ুন : ময়মনসিংহ বোর্ডে পাসের হার ৮৯.০২ শতাংশ

নব্বইয়ের আন্দোলনে এ দুই নেতা শহীদ হওয়ার পর আন্দোলনের সঙ্গে ছাত্রনেতারা গণতদন্ত কমিটি গঠন করে। পরে ১৯৯১ সালে এ ঘটনায় হত্যা মামলা করা হয়। মামলার বাদী ছিলেন, তৎকালীন জাসদের সম্পাদক নুরুল আমিন। মামলা কৌশলি ছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির ময়মনসিংহ জেলা শাখার বর্তমান সভাপতি এমদাদুল হক মিল্লাত।প্রতিবছর এই দিনে ফিরোজ জাহাঙ্গীর দিবস পালিত হয় এবং তাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

শেয়ার করুন :
জাতীয় সঞ্চয় অধিদপ্তর

One thought on “আজ শহীদ ফিরোজ জাহাঙ্গীর দিবস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *